অথঃ কুন্তীবুড়ো প্রবচন...


 ক্ষাপাঃ  ওগো  কুন্তী বুড়ো এবার খুন্তি ধর,  বেলা যে পড়ে এল রান্না কর।    

 কুন্তী বুড়োঃ   রান্না-বান্না-কান্না!!!  হেঁ হেঁ হেঁ... লাল-হলুদের বন্যা!  ও ফাঁদে পা নাই বা দিলে ভাই,  বোঁচকা ফেলে লাঙল ধর নইলে কিছুই নাই।

ক্ষাপাঃ  কখনোও বল লাঙল ধর, কখনোও বোঁচকা!  ধন্য তুমি ও তোমারই ইচ্ছা।  

কুন্তী বুড়োঃ  দেশের-দশের সেবাই ধর্ম, সেবাই ইচ্ছা ভাই।   

 ক্ষাপাঃ  সেবার কথা না বলে ভাই নিজের কথা বল, নিজের দিকে তাকিয়ে দেখ নিজের পথে চল।

কুন্তী বুড়োঃ  অনেক দিনের আশ ছিল ভাই নিজের কথা বলি, না বিকোলে কিকরে ভাই নিজের পথে চলি?   


ক্ষাপাঃ  জিতলে তুমি জিতবে দেশ, এই তো ছিল কথা-- আজ কেন ভাই বদলে ফেল সরল সত্য কথা!     

কুন্তী বুড়োঃ  ভুল হোল ভাই-- জিতলে মানুষ, জিতবে দেশ- এই ছিল ভাই কথা।


ক্ষাপাঃ  দেশের মধ্যে মানুষ রয় সেইতো গেলে ভুলে!

কুন্তী বুড়োঃ  ভুলের আমি ভুলের তুমি ভুলেই ভরা ভাই, আজব দেশের মানুষ আমরা ভুলেই মরে যায়!  
দেহের মধ্যে দেহীর বাস সকল কথার সার, তোমার-আমার সবার মাঝে কুন্তীবুড়োর বাস।       


 

Popular Posts