অফলাইন শপিং


যতদিন বাঁচি ততদিন শিখি........ এই কথাটা বলতেন আমার এক টিচার।  ধুতি-পাঞ্জাবী পরনে এক জিনিয়াস।  ম্যাথস-এর বিভিন্ন জটিল ধাঁধার উত্তর মেলাতে জুড়ি ছিলনা তাঁর।  প্রশ্ন জাগে জিনিয়াস কারে কয়?

একটা উত্তর এব্যাপারে ভীষণ সাদামাটাঃ  সাধারনের মাঝে অসাধারন লুকিয়ে থাকে।

সে যাই হোক অফ-লাইন শপিং-এ জিনিয়সিটির কোন প্রয়োজন নেই তবুও কেন? তার কথায় পরে আসছি।  আসলে আজ কাজের ফাঁকে অনলাইন শপিং সেন্টারে হাজির হয়েছিলাম।  কারনটা খুবই সাধারন।

একটি ছেলে, বেশ শান্ত-ইন্ট্রোভার্ট-কেজো-সৎ, তার প্যান্ট-এর নিচে জুতোর ব্যাক সাইডে ক্যাট শব্দটি লুকোনো দেখা যাচ্ছে।  বোঝায় যায় সচেতন ভাবে তুলে রাখা প্যান্টটি ব্রান্ড-এর গরিমা প্রকাশের তাগিদে।  জুতোটি দেখে বেশ ভাল লাগছিল তাই দেখছিলাম।  খানিকবাদে কৌতুহলী মন প্রশ্ন করে বসেঃ এটা কোন ব্রান্ড, কত দাম? 

মুচকি হেসে উত্তর আসে ক্যাট।  হাসির ভঙ্গিতে সেই প্রচ্ছন্ন গরিমা - ব্রান্ড ভ্যালুর গরিমা লুকিয়ে আছে।  নিজের অজ্ঞতায় মাঝেমধ্যেই অবাক লাগে!  এই অজ্ঞতা সেই গ্রাম্য মানুষের শহর দেখার মত আরকি।

কোনোও এক অনলাইন ওয়েবসাইট থেকে ডিসকাউন্ট-এ কেনা।  অর্থাৎ অনলাইন শপিং।  

সব শুনে আমিও মজলাম সেই সাইটে।  আগে এক অনলাইন সাইট থেকে বই অর্ডার দিয়ে কিনতাম।  এখন জুতো কেনার জন্য সাইটে প্রবেশ।  আমি মানুষটা একটু কুঁড়ে, তার কোথাও যাওয়া মানেই ভীষন গা-জ্বালা ধরা ব্যাপার।  তাই কুঁ ড়ের বাদশার এই সমস্ত সাইটের প্রতি আগ্রহ বেশি।    

নানান জুতো দেখে মাথা খারাপ হওয়ার জোগাড়।  শুধু তাই নয় হরেক রকম অফারে ভর্তি।  কোথাও 20 পার্সেন্ট তো কোথাও 40 পার্সেন্ট।  দেখতে দেখতে হারিয়ে যায় সেই ছেলেবেলার এক ছবিতে যেখানে সেই জিনিয়াস স্যারের জুতোর ইমেজ লুকিয়ে আছে।  সেই ধুতি-পাঞ্জাবী-বাটার কাবুলি জুতো।  আর বড়জোর শীতকালে একটা পরিপাটি শাল।

সব ব্রান্ড-এর ভীড়ে বাটা শব্দটা কোথাও খুঁজে পেলাম না।  বড়ই পুরোনো বদ্ধ ব্রান্ড।  বদ্ধ শব্দটা ব্যাবহারের কারন থেমে আছে বলে মনে হয়।  নতুনের আমদানি বন্ধ।  কিছুদিন আগে অ্যাম্ব্যাসাডার গাড়ির মা্যনুফ্যাক্চারিং বন্ধ হয়েছে।  কারন নতুনের আমদানি বন্ধ।  রুজিহারা মানুষের কথা ভাবার সময় সফল কেজো মানুষদের নেই।  কোনোওদিন হয়ত দেখব বাটার শো-রুম বন্ধের খবর পেপারে বড় করে মাঝের পাতায় ছাপা হলো, কেউ দেখল কেউ দেখল না।  না দেখার দলে হয়ত আমিও পড়ব।  সফলতার দিকে আমিও হয়ত পা বাড়িয়ে ফেলেছি তখন!

গতকালই নিজের, ছেলের ও এক ভাই-এর জন্য শপিং মল থেকে বেশ কিছু জিনিস কিনলাম।  সেখানেও দেখি নানান ব্রান্ড-এর পসরা সাজিয়ে সকলে বসে আছে।  তার ওপর ছাড়ের বন্যা।  কেউ বসে মাছি তাড়াচ্ছে, কেউবা ভিড় সামলাচ্ছে।  পরদিনই আবার অনলাইনে জুতো ভিড়ে হারাতে বসে হঠাৎই মনে হলোঃ  শপিং মলে  ঘুরে ঘুরে শপিং-এর নাম কি হবে?

উইন্ডো শপিং শব্দতো ব্যাকডেটেড।  নতুন শব্দের আমদানি হওয়া দরকার।  অফলাইন এডিট একটা শব্দ যা ফিল্ম এডিটিং-এ ব্যাবহার হয়।  টেকনিক্যাল কচকচির মাঝে না গিয়ে সহজ সরল ভাষায় বলিঃ যেখানে সোর্সকে ইন্ট্যাক্ট রেখে রান্না অর্থাৎ এডিট হয়।     

অফলাইন শপিং!!!  এই শব্দটা মাথায় এল, কিন্তু ব্যাবহারে একটু অসুবিধে হচ্ছে।  শপিং-এ সোর্সকে ইন্ট্যাক্ট রাখলে তো বিক্রিই হবে না।  অগত্যা নতুন শব্দের আমদানি বন্ধ রেখে উইন্ডো শপিং-এ থেমে থাকি।  খুঁজে দেখি নতুন কোনোও শব্দ পায় কিনা।  আপনারা পেলেও জানাবেন।     

Comments

Popular Posts