অদ্বৈত ........

হয়তো বা কোনোওদিন কারোও হাতে হাত ধরে জীবনের ধারাপাতে আঁধারবার্তা পাঠিয়ে নিথর হয়ে যাব; সেদিনও কি থাকবে তুমি পাশে? বাসবে কি তুমি ভাল একইভাবে ? 

আলোর দেবতা শান্ত দীপ্ত কন্ঠে বলেন - আঁধারও আমি, আলোও আমি..  বার্তাও আমি, কর্তাও আমি .... তুমি তো কোথাও নেই!!!

হয়তো বা কোনোও বিচ্ছিন্ন এক দ্বীপে নিশ্চেট দেহটা পড়ে থাকবে তোমার সাথে তোমার কোলে মেখে ধুলো-বালি চকমকে অভ্রর ঝিকিমিকি; তোমার সাথে পুড়বে বলে। 

আলোর দেবতা ফিসফিসিয়ে কানেকানে বলেন - এখনও কি বুঝলে না আমিই পুড়ি, আমিই খেলি, আমিই ধুলো মাখা শরীরে গড়াগড়ি খাই - তোমার কোনোও অস্তিত্বই নেই!!!

রাগে গরগর করে ওঠে সারাটা দেহ-মন।  আকন্ঠ অতৃপ্তি নিয়ে মনটা বিদ্রোহ জানান দিতে চায়, কিন্তু বিদ্রোহ কার সাথে!  ছায়ার সাথে অশরীরির সাথে অধরার সাথে কি লড়াই হয়?

এই বেশ ভাল নয় কি সমর্পন করে কাটিয়ে দেওয়া সময় টা, আর কিছু না হোক সমর্পনের ভানটাও তো করতে পারতিস - বলেন আলোর দেবতা। 

প্রাণ এই প্রথম জবাব দেওয়ার সুযোগ পায় - অস্তিত্বই যদি নেই তাহলে কিসের সমর্পন কিসেরই বা লড়াই!  এতো অসম অদেখা অদেয় বনাম মিথ্যা!!! পুরোটাই মিথ্যা!!!  সত্য মিথ্যার আড়ালে শুধুই আঁধার-আলোর লুকোচুরি।  কখনও আঁধার বলে আমি বড় কখনওবা আলো বলে আমি!  আদপে শুধুই আমি!!!  কোথাও কি আছ তুমি!!! 

আলোর দেবতা নত স্বরে নিচু সুরে নতজানু হয়ে প্রাণকে নমস্কার করে বলে - এতদিনেও বুঝলে না তুমিই তো আমি, পুরোটাই অদ্বৈত।     

       
Post a Comment

Popular Posts