কিছু কথা

লেখার কথা ভেবে বসিনি।  এই প্রথম পাঠকের সাথে সরাসরি কথা বলার ইচ্ছে জেগেছে।  জানি না এর সঠিক কারন। হয়ত জীবনের বিভিন্ন রঙ মানুষকে বদলে দেয়।  অনেক দিনের পুরোনো কথাটা মনে পড়ে গেল- দেহপটে, সনে-নটে সকলি হারায়।

নিজেকে খুলে দেখার ও দেখানোর ইচ্ছে বা বাসনা জাগে।  আজ অবধি কে এই ব্লগের পাঠক তা জানার আগ্রহ বোধ করিনি।  কিই বা এর ভবিষ্যত বোঝার চেষ্টা করিনি।  কারন জানা নেই।  হয়ত অকারন- তাই।

যার প্রেরণায় এই ব্লগ লেখার শুরু সেই আজ নেই, প্রেরণা রয়ে গেছে।  তাই নানা ঘটনাবলির মাঝেও ব্লগ লেখা থামাতে পারিনি।

প্রেরণাদাত্রীর  সম্পর্কে এমুহূর্তে বিশেষ কিছু জানাচ্ছি না।  শুধু এটুকু বলি - আমার প্রতিটি চিন্তায় ও কাজে তাকে ধরে রাখার অনবরত পরিশ্রম যেন সার্থক করতে পারি।

ব্লগের নিয়মিত মুষ্টিমেয় পাঠক, তাদের প্রতি অনুরোধ -- গঠনমূলক সমালোচনা একান্তই কাম্য, তা শুধু নিজেকে গড়ে তোলার জন্য কারন এই ব্লগ ও জীবনের প্রধান সমালোচক আমার পাশে নেই।

একমাসের ওপর হয়ে গেল সে নেই।  তাতে সমাজের, না সমাজের শুধু কেন আমার নিজের জীবনের কিছুও থেমে থাকে নি।  এক স্যার বলতেন - নিশ্বাস নেওয়া বন্ধ করেছ?  অর্থাৎ মৃত্যুর পূর্ব অবধি দায় রয়ে যায়।  বোধ হয় দায় রয় না, ক্যারি-ফরয়োর্ড হয়ে যায়।

প্রশ্ন জাগে- বাবা কি মা'র জায়গা নিতে পারে?  মনেতো হয় পারে, কখোনোও দ্বিধা জাগে।  সত্যি!  কিছু শোনা কথা মনে পড়ে যায়- পারবো তো করতে করতে পার্বতী হয়ে যাবি।  অর্থাৎ শক্তি অর্জন করে জয়ী হবি।

বিগত কিছুদিন নানা মানুষ, নানা মত, নানা শব্দাবলির মধ্য দিয়ে পেরিয়েছি।

 সেরা প্রাপ্তি একটাই - শান্তনা দেবনা; শুধু বলি ভাল থেক, ভাল রেখ- বেস্ট অফ লাক।   


     

Popular Posts